প্রোডাক্ট ইউজের ক্যাটাগরি

আপনার ই-কমার্স / এফ-কমার্স কে নিশ্চয় আরো বড় পরিসরে করতে চান? কিন্তু তার জন্য প্রয়োজন আপনার প্রোডাক্ট/সার্ভিস ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেল ঠিক রাখা। অনলাইনের এই যুগে আপনার কাঙ্খিত কাস্টমার / ক্লায়েন্ট তো পেয়ে যাবেন কিন্তু তাদের ধরে রাখতে পারবেন শুধুমাত্র আপনার কোয়ালিটি সম্পন্ন সার্ভিসের মাধ্যমে।
boost up tip 1

 

 

 

এখন প্রথম ভিত্তি টা হচ্ছে মার্কেটিং কাস্টমার /ক্লায়েন্ট  ইমপ্রেস করা

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে অনলাইনে সবচেয়ে বেশি ট্রাফিক (ইউজার একটিভিটি ) থাকে সোশ্যাল নেটওর্য়াকে। তার মধ্যে সবচাইতে বেশি ফেসবুকে। এর পরে ইউটিউব, ইনস্টাগ্রামে এখন উল্লেখযোগ্য একটিভিটি এবং লিংকডিন ও তারমধ্যে রয়েছে। এই চার টা যারা ইউজ করে সবাই কিন্তু ফেসবুক ব্যবহারকারী। আর সব চাইতে বেশি সময় ফেসবুক স্ক্রোলে সময় দেয়। তাহলে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ইমপ্রেস করা উচিত।

নিচের ছবিতে দেখতে পারছেন ৬ টা ক্যাটাগরী দেয়া আছে। যার প্রথম ৩ টা হচ্ছে আপনি কি দিয়ে / কিভাবে আপনার প্রোডাক্ট / সার্ভিস মানুষের কাছে উপস্থাপন করবেন। বলা যায় এই গুলো হচ্ছে স্ট্রাকচার / ডিজাইন যা কোন কাস্টমার/ ক্লায়েন্ট কি চাচ্ছে তা তাকে সেভাবে দেখানো।

ফেসবুক আপনাকে অ্যাডস ক্রিয়েট এর সময় অ্যাড ম্যানেজারে ১৬ টা ফাঙ্কশন দেয়। আপনাকে বুঝতে হবে কোনটাতে কেমন রেসপন্স আসবে।

এখন আসি পরের ২ টা তে – ছবি দেখে বুঝে গেছেন এই ২ টা হচ্ছে আপনার অডিয়েন্স। প্রথম টা কোর অডিয়েন্স যেখানে আপনি খুঁজে বের করবেন কাদের কাছে আপনার অ্যাডস শো করবেন।
পরের টা হচ্ছে লুকআলাইক অডিয়েন্স এই টা মূলত ব্যাপক ভাবে আপনার সেল ইনক্রিজ করতে পারে। লুকআলাইক অডিয়েন্স করতে হলে কাস্টম অডিয়েন্স ক্রিয়েট করতে হবে।আপনার কাস্টমার / ক্লায়েন্ট এর এমন কিছু তথ্য নিলেন যেমন নাম , ফোন নম্বর ,ইমেইল এই গুলো দিয়ে ডাটাবেস বানালেন এবং ফেসবুক কে বললেন আমার কাস্টমারদের মতো এমন কাস্টমারই শুধু খুঁজে বের করো। তবে মনে রাখতে হবে অবশ্যই তথ্য গুলো যেন ফেসবুকের সাথে রিলেটেড থাকে। সব ঠিক-ঠাক হলে আপনার ডাটাবেসের প্রায় ৬০% কাজে আসবে।

এখন আসি লাস্ট ক্যাটাগরিটা নিয়ে ফেসবুক পিক্সেল এই টা হচ্ছে ১ টা এনালাইটিক টুল যা আপনাকে বিভিন্ন স্ট্যাটিসটিক্স শো করবে এবং এটি ট্র্যাকিং করবে কারা আপনার ওয়েবসাইটে ঢুকছে কোন মাধ্যমে। তারমানে এই টা ইউজ করবে তারা যারা ওয়েবসাইট ব্যবহার করছে।


উপরের সব কিছু ছিল বেসিক ধারণা মাত্র। আপনারা যারা ডিপ ড্রাইভ কিংবা ফেসবুক মার্কেটিংয়ের গুন্ বুঝে গেছেন তারা বুঝতেই পারছেন আপনার রিটার্ন ওন ইনভেস্টমেন্ট (ROI) কেমন আসতে পারে। 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *
You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>